রোজা রেখেই মাঠে ছিলেন মুশফিক-রিয়াদ-মিরাজ

miraj-mushfiq.jpg

ক্রিকবিডি২৪.কম রিপোর্ট

বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটাররা বরাবরই ধর্মপ্রাণ। তারই পথ ধরে রমজানের রোজাও রাখছেন। কিন্তু বিশ্বকাপের মাঠেও যে তারা রোজা রেখেই নামবেন তা আঁচ করা যায়নি। রোববার দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে রোজা রেখে খেলেছেন তিন টাইগার ক্রিকেটার মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ও মেহেদি হাসান মিরাজ।

অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা সংবাদ সম্মেলনে জানালেন ‘মুশি (মুশফিক), রিয়াদ (মাহমুদউল্লাহ) ও মিরাজকে নিয়ে আমি গর্বিত ওরা তারা রোজা রেখে ভালো খেলেছে।’

ইউরোপে রোজা থাকতে হয় ১৯ ঘণ্টার বেশি সময়। এই দীর্ঘ সময় উপবাস থেকে অনুশীলন, ম্যাচ খেলা ভয়াবহ কঠিন। ফিট ফিট রাখাটাও বেশ কষ্টসাধ্য। তারপরও কাজটিই করেছেন মুশফিক, মাহমুদউল্লাহ ও মেহেদি হাসান মিরাজ।

মুশফিক-রিয়াদের আগের অভিজ্ঞতা থাকলেও এবারই প্রথম রোজা রেখে আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেললেন মিরাজ। তিনি জানান, ‘বিশ্বকাপের ম্যাচে অনেক চাপ থাকে। আল্লাহর অশেষ রহমত, রোজার দিনে এমন ম্যাচ খেলা ভাগ্যের ব্যাপার। এটা অনেক বড় অভিজ্ঞতা। ভালো লেগেছে, এমন দিনে জিততে পেরেছি। যখন নিয়ত করেছি রোজা থাকব, আল্লাহর ওপর ছেড়ে দিয়েছি। মাশরাফি ভাই বলছিলেন, আমাদের ওপর আল্লাহর বরকত আছে।’

অবশ্য মাঠে ছিলেন বলেই কীনা কে জানে রোজা মাথায় ছিল না মিরাজের। রোববার ওভালে প্রোটিয়াদের বিপক্ষে ঐতিহাসিক জয়ের পর বলেন, ‘খেলার সময় রোজা মাথায় ছিল না। বোলিং-ব্যাটিং নিয়েই বেশি ভেবেছি। যখন খেলা শেষ হয়েছে, তখন একটু খারাপ অনুভব হয়েছে, মনে পড়েছে, আমি তো রোজা আছি!’

রোজা রেখে নেমে ১৩১ মিনিট উইকেটে থেকে ৮০ বলে ৭৮ রান  তুলেন মুশফিক।৫০ ওভার পর্যন্ত উইকেটকিপিং করেন তিনি। মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ৪৮ মিনিট উইকেটে টিকে মাত্র ৩৩ বলে অপরাজিত ৪৬ রান তুলেন। আর মেহেদি হাসান মিরাজ তিন বলে অপরাজিত ৫ রানে। এরপর বল হাতে ১০ ওভারে ৪৪ রানে তুলে নেন ১ উইকেট।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *