নতুন চ্যাম্পিয়নের অপেক্ষায় বিপিএল

bpl8.jpg

ক্রিকবিডি২৪.কম রিপোর্ট

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) গত ছয় আসরে চ্যাম্পিয়ন হওয়া কোন দল এবার ওঠেনি ফাইনালে। তাই জমজমাট এ টুর্নামেন্ট শুক্রবার পাচ্ছে নতুন চ্যাম্পিয়ন দল। এরইমধ্যে এ তকমা পাওয়ার জন্য শিরোপা নির্ধারনী ম্যাচের টিকিট নিশ্চিত করেছেন মুশফিকুর রহিমের খুলনা টাইগার্স ও আন্দ্রে রাসেলের রাজশাহী রয়্যালস। আজ এ দুই অধিনায়ক মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে বিপিএল ট্রফি নিয়ে আনুষ্ঠানিক ফটোসেশনে অংশ নেন। সে সময় তাদের মুখে ছিল হাসি।

শুক্রবার সন্ধ্যা সাতটায় মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে বিপিএল ট্রফি জিততে নামবে খুলনা ও রাজশাহী। ম্যাচটি সরাসরি সম্প্রচার করবে জিটিভি ও মাছরাঙা টিভি।

বিপিএলে এখন পর্যন্ত চ্যাম্পিয়নের স্বাদ পেয়েছে ঢাকা, কুমিল্লা ও রংপুর। ২০১২ সালে বিপিএলের প্রথম আসরে চ্যাম্পিয়ন হয় ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটর্স। পরের আসরেও চ্যাম্পিয়ন তারাই। তৃতীয় আসরের শিরোপা হাতে তুলে নেয় কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। চতুর্থ আসরে আবার ঢাকা, সেবার ঢাকা ডায়নামাইটস নামে।

পঞ্চমবার রংপুর রাইডার্স আর গত আসরে চ্যাম্পিয়ন হয় কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। এবার ফাইনালে উঠতে পারেনি সাবেক চ্যাম্পিয়নদের মধ্যে কোনো দলই, উঠতে পারেনি বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা।

চলতি বিপিএল ফাইনালের আগে রাজশাহীর চেয়ে বেশ এগিয়ে রয়েছে খুলনা। এখন পর্যন্ত এ টুর্নোমেন্টে দু’দল মুখোমুখি হয়েছে তিনবার। কিন্তু দুবার জিতেছে খুলনা। একবার রাজশাহী।

শুধু দলীয় লড়াইয়ে নয়, একক কৃতিত্বেও ফাইনালের আগ পর্যন্ত খুলনা বেশ দাপটের সঙ্গে এগিয়ে। এখন পর্যন্ত এ টুর্নামেন্টে সর্বোচ্চ রান তোলার তালিকায় শীর্ষ দুইয়ে রয়েছেন খুলনার অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম ও রাইলি রুশো। ১৩ ম্যাচে ৪৭০ রান করেছেন মুশফিক। সমান সংখ্যক ম্যাচে ৪৫৮ রান রুশোর। এই তালিকায় তিনে রাজশাহী রয়্যালসের শোয়েব মালিক। ১৪ ম্যাচে তিনি করেছেন ৪৪৬ রান।

এদিকে বোলিংয়েও দাপট খুলনার। সর্বোচ্চ উইকেট শিকারির শীর্ষ দশের তিনজনই চিংড়ির শহরের দলটির। ২০ উইকেট নিয়ে যৌথভাবে এক নম্বরে রংপুর রেঞ্জার্সের মোস্তাফিজুর রহমান ও চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের রুবেল হোসেন। তবে এই দুজনের দল ফাইনালের আগেই বিদায় নিয়েছে। তাই তাদের সামনে উইকেট সংখ্যা বাড়ানোর আর কোনো সুযোগ নেই। তবে এই দুজনকে ছাড়িয়ে যাওয়ার সম্ভাব্য অবস্থানে দাঁড়িয়ে এখন খুলনা টাইগার্সের তিন পেসার, রবি ফ্রাইলিঙ্ক, মোহাম্মদ আমির ও শহিদুল ইসলাম। ১৩ ম্যাচে ফ্রাইলিঙ্কের উইকেট ১৯টি। আমির ও শহিদুলের ১২ ম্যাচে শিকার সংখ্যা ১৮।

বোলিংয়ের এই শীর্ষ দলে রাজশাহী রয়্যালসের রয়েছেন শুধু মোহাম্মদ ইরফান। পাকিস্তানি এই পেসার ১১ ম্যাচে ১২ উইকেট নিয়ে সেরা উইকেট শিকারির তালিকার দশ নম্বরে আছেন।

তবে শিরোপা লড়াইয়ে রাজশাহী রয়্যালস কোনভাবেই ছেড়ে কথা বলবে না। কেননা দলটিতে রয়েছেন আন্দ্রে রাসেল। ওয়েস্ট ইন্ডিজ এ অলরাউন্ডার কিন্তু একাই পদ্মা পাড়ের দলটিকে এনে দিতে পারেন প্রথম বিপিএল শিরোপা। যার রেশটা তিনি গতকাল দ্বিতীয় কোয়ালিয়ার ম্যাচে দেখিয়েছেন। চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের বিপক্ষে ২২ বলে তিনি একাই খেলেন ৫৪ রানের ঝড়ো ইনিংস। তবে ব্যাপারটি নিয়ে ভাবছে না খুলনা। দলটির চোখ শুধুই শিরোপায়। এখন দেখার বিষয় শেস হাসি হাসে কোন দল। আপাতত অপেক্ষায় ক্রিকেট প্রেমিরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *