৬ ডিসেম্বরই মাঠে গড়াবে বিপিএল

Bpl.jpg

ক্রিকবিডি২৪.কম রিপোর্ট

সম্পূর্ণ নতুন আঙ্গিকে এবারের বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল) মাঠে গড়ানো নিয়ে শঙ্কা ছিল। তবে সোমবার টুর্নামেন্টটির টেকনিক্যাল কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুসের কথায় তার মূহুর্তের মধ্যে দূর হয়েছে। তিনি জানিয়েছেন, আগামী ৬ ডিসেম্বরই মাঠে গড়াবে জমজমাট এ টুর্নামেন্ট।

আগামী বছর পালন করা হবে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী। এজন্য বিসিবি বিভিন্ন পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় প্রথম পদক্ষেপ হলো বিপিএল। বিসিবির নিজস্ব আয়োজনে আসরটির নাম দিয়েছে বঙ্গবন্ধু বিপিএল ২০১৯। তবে বেশ কিছু দিন থেকে বিপিএল নিয়ে ঘটা করে কিছু না জানালেও ভেতরে ভেতরে কাজ অনেকটাই গুছিয়ে ফেলেছে টুর্নামেন্টটির টেকনিক্যাল কমিটি। এমনটাই জানিয়েছেন জালাল, ‘আমি আগেও বলেছি ৬ ডিসেম্বর যে শিডিউল দেওয়া আছে, এখন পর্যন্ত সেটাই আছে। এরজন্য ক্রিকেট বোর্ডে কিন্তু কাজ শুরু হয়ে গেছে। যেসব পেপার ওয়ার্ক করার কথা তা চলছে। তা হয় গেলেই আমরা খুব শীঘ্রই দলগুলো স্পন্সর নিয়ে আমরা বসব।’

গত কয়েক আসরের বিপিএল ফ্র্যাঞ্চাইজিদের সঙ্গে বিসিবির চুক্তি শেষ হয়েছে গত মৌসুমে। নতুন মৌসুমের জন্য তাই নতুন চুক্তির প্রয়োজন ছিল। কিন্তু এবার ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলো নানা ধরনের দাবি-দাওয়ার কারণে শেষ পর্যন্ত হয়নি তেমনটি। তাই দেশের ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থাটি জানিয়ে দেয়-সপ্তম আসরের বিপিএলে নেই কোন ফ্র্যাঞ্চাইজি। নিজেরাই উদ্যোগী হয়ে বিপিএল করবে। স্পেশাল এই এডিশনের নামও দেয়া হয়েছে-বঙ্গবন্ধু বিপিএল। কিন্তু এ টুর্নামেন্ট কোন ফরম্যাটে খেলা হবে, দলগুলোর নাম কি হবে, দেশি-বিদেশী খেলোয়াড়দের প্লেয়ার ড্রাফটের বিস্তারিত থেকে গেছে অন্ধকারে। বাতিল হয়ে যাওয়া ফ্রেঞ্চাইজিদের সঙ্গে এরই মধ্যে যেসব বিদেশী ক্রিকেটার চুক্তি করেছিলেন তাদেরই বা কি হবে। তাও পরিষ্কার হয়নি। তবে গতকাল জালাল ইউনুস জানিয়েছেন সব কিছুই অনেকটাই এগিয়েছে, ‘ফরম্যাট আগে যেমন ছিলো অলমোস্ট একই থাকবে। চারজন বিদেশী খেলোয়াড় যেটা আগে ছিলো, ৪ জনই থাকছে। ফ্র্যাঞ্চাইজি আগে কোন প্লেয়ারের সঙ্গে যদি চুক্তি করে থাকে। আর তাঁরা যদি ফ্রি থাকে -তাহলে আমরা তাঁদেরকে অফার করতে পারি যে তারা অংশ নেবে কিনা।’

স্পেশাল এডিশনের এ বিপিএল একবারই হবে। এমনটাই সোমবার জানিয়েছেন জালাল, ‘আমরা আগেই বলেছি বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ একটা স্পেশাল এডিশন। আর এটা একটা আসরেই হবে। এই টুর্নামেন্টে অংশগ্রহণ এবং স্পন্সরের জন্য আমরা যে বিজ্ঞাপন দিয়েছিলাম সেখানেও উল্লেখ করা আছে এই আসর একটিবারের জন্য হবে।’

বিপিএলের আগের বেশিরভাগ আসরেই দেখা গেছে ৭টি দল। কিন্তু এবার থাকছে নাকি ৬টি দল। এমন পরিকল্পনায় করেছে বিসিবি। যদিও গত মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহে বিসিবি প্রধান জানিয়েছিলেন, বঙ্গবন্ধু বিপিএলে আগের মতই দল থাকবে সাতটি, ‘প্রত্যেক দল- যা দল যা ছিল সব ঠিক থাকবে। শুধু ম্যানেজমেন্ট আমাদের থাকবে। খেলোয়াড়দের থাকা খাওয়া, পরিবহন খরচ সব কিছু আমরা বহন করব। এতে করে অন্যরা খুশি হবে। যারা (ফ্রেঞ্চাইজি) এবার খেলতে চাচ্ছিলেন না, তারা খুশি হবেন। যারা আর্থিক ক্ষতির কথা বলছেন, তারা তো আরও বেশি খুশি হবেন। তাদের পুরো টাকাটাই বেঁচে যাবে।’

বিপিএল মাঠে গড়ানোর আগেই বেশ কিছু নাটক হয়েছে। যা হয়তো এখনও কিছু বাকি আছে। তবে ক্রিকেট ভক্তরা চান সেভাবেই হোক জমজমাট এ টুর্নামেন্টে মাঠে গড়াক।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *