স্বপ্নের ট্রফি জয়ের আনন্দে মাতোয়ারা বাংলাদেশ

bd team win mashrafe

ক্রিকবিডি২৪.কম রিপোর্ট

অবশেষে ফাইনাল দুঃস্বপ্ন কাটল বাংলাদেশের। একটি দুটি নয়, ৬বার ফাইনালে খেলেও শিরোপা অধরা হয়েই থেকেছে। সপ্তম চেষ্টায় এসে কাটল ফাইনালের গেরো। আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় ক্রিকেট সিরিজের শিরোপা জিতল টাইগাররা। অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজার হাতে ধরা দিলো অনেক কাঙ্খিত এক ট্রফি!

শেষ দিকে এসে শুক্রবার ডাবলিনের মালাহাইডে দ্যা ভিলেজ ক্রিকেট মাঠে চমক দেখালেন বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা। মাহমুদউল্লাহর সঙ্গে মোসাদ্দেক হোসেনের ঝড়ো এক জুটিতে চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ।

বৃষ্টি আইনে ব্যাট করতে নেমে বিপাকেই ছিল বাংলাদেশ। শেষ ৩ ওভারে বাংলাদেশের চাই ২৭ রান। ফ্যাবিয়ান অ্যালেনের এক ওভার থেকে ২৫ রান নেন মোসাদ্দেক। দল চলে যায় জয়ের দ্বারপ্রান্তে। ফিনিশিং দিয়েছেন মাহমুদউল্লাহ। তার বাউন্ডারিতেই বাধভাঙ্গা আনন্দে মাতে দল। বিশ্বকাপের ঠিক আগে মিলল ট্রফি নামের সোনার হরিণ!

ফাইনালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে শুক্রবার ডাকওয়ার্থ ও লুইস পদ্ধতিতে ৫ উইকেটে জিতেছে বাংলাদেশ। ২১০ রানের লক্ষ্য ছিল সামনে। ৭ বল হাতে রেখেই সেই লক্ষ্যটা পূরণ করেছে দল।

শেষ অব্দি ২৪ বলে পাঁচ ছক্কা ও দুই চারে ৫২ রানে অপরাজিত ছিলেন মোসাদ্দেক। ২১ বলে ১৯ রান তুলেন মাহমুদউল্লাহ।

এর আগে ব্যাট করতে নেমে বৃষ্টির বাধায় পড়ে উইন্ডিজের ইনিংস। ২৪ ওভারে নির্ধারিত হয় ম্যাচ। তারপর ক্যারিবিয়ানরা ১ উইকেটে করে ১৫২ রান। উইন্ডিজের হোপ ৭৪ ও আমব্রিস করেন ৬৯* রান। কিন্তু শিরোপা জিততে ডাকওয়ার্থ ও লুইস পদ্ধতিতে বাংলাদেশ পায় ২৪ ওভারে ২১০ রানের বড় টার্গেট। সেই বড় সংগ্রহটা অনায়াসে টপকে গেল টাইগাররা।

তবে মোসাদ্দেক ঝড়ের আগে ব্যাট হাতে পথ দেখান সৌম্য সরকার। দুর্দান্ত ফর্মে থাকা এই ব্যাটসম্যান এদিন ৪১ বল খেলে করেন ৬৬ রান। তামিম ইকবালের ব্যাটে ১৮। মুশফিকুর রহীম ৩৬ রান করে ফেরেন সাজঘরে।

বৃষ্টির বাধায় ম্যাচের দৈর্ঘ্য কমে আসায় সামনে ছিল কঠিন লক্ষ্য, আম্পায়ারিং নিয়ে প্রশ্ন উঠতে পারতো। তারপরও বাঘের গর্জন ডাবলিনে। রচিত হলো নতুন ইতিহাস। টেস্ট স্ট্যাটাস প্রাপ্তির পর ইতিহাসে প্রথম ট্রফি পেলো বাংলাদেশ।

সংক্ষিপ্ত স্কোর-

ওয়েস্ট ইন্ডিজ: ২৪ ওভারে ১৫২/১ (হোপ ৭৪, আমব্রিস ৬৯*, ব্রাভো ৩*; মাশরাফি ০/২৮, সাইফ ০/২৯, মুস্তাফিজ ০/৫০, মোসাদ্দেক ০/৯, মিরাজ ১/২২, সাব্বির ০/১২)

বাংলাদেশ: (লক্ষ্য ২৪ ওভারে ২১০) ২২.৫ ওভারে ২১৩/৫ (তামিম ১৮, সৌম্য ৬৬, সাব্বির ০, মুশফিক ৩৬, মিঠুন ১৭, মাহমুদউল্লাহ ১৯*, মোসাদ্দেক ৫২*; নার্স ০/৩৫, হোল্ডার ০/৩১, রোচ ০/৫৭, গ্যাব্রিয়েল ২/৩০, রিফার ২/২৩, অ্যালেন ১/৩৭)

ফল: ডাকওয়ার্থ ও লুইস পদ্ধতিতে বাংলাদেশ ৫ উইকেটে জয়ী
ম্যাচসেরা: মোসাদ্দেক হোসেন
সিরিজসেরা: সাই হোপ

প্রত্যুত্তর

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong>