আফিফের ব্যাটে নাটকীয় জয় বাংলাদেশের

afif

ক্রিকবিডি২৪.কম রিপোর্ট

মিরপুরের শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে তখন পিনপতন নীরবতা! ফিরে গেলেন সাকিব আল হাসান। বাংলাদেশের ২৯ রানে শেষ ৪ উইকেট। এখানেই শেষ নয় এরপর এক পর্যায়ে দল ৬০ রানে তুলতেই নেই ৬ উইকেট।  ঠিক তখনই ব্যাট হাতে প্রতিরোধ গড়লেন দুই ক্রিকেটার। একজন আফিফ হোসেন ধ্রুব। অন্যজন মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত। তারপর স্রোতের বিপরীতে লড়ে গেলেন দু’জন। আর দলকে এনে দিলেন নাটকীয় এক জয়।

ওভাই ত্রিদেশীয় টি-টুয়েন্টি ক্রিকেট সিরিজে শুক্রবার জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ৩ উইকেটে জিতেছে বাংলাদেশ।

ম্যাচে টস হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে জিম্বাবুয়ে  ১৮ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে করে ১৪৪ রান। বৃষ্টির কারণে খেলা শুরু হতে দেরি হওয়ায় ম্যাচ দাঁড়ায়ে ১৮ ওভারে। জবাব দিতে নেমে ২ বল হাতে রেখে ৭ উইকেট হারিয়ে লক্ষ্যে পৌঁছে যায় টাইগাররা।

ম্যাচে নাটকীয় এই জয় এনে দেন আফিফ ও মোসাদ্দেক। দুজন সপ্তম উইকেট জুটিতে যোগ করেন
৮২ রান। মাত্র ২৪ বলে হাফ সেঞ্চুরি করেন আফিফ।  ২৬ বলে ৫২ রান করে দলকে জয়ের কাছাকাছি নিয়ে সাজঘরে ফেরেন তিনি।  আর ২৪ বলে ৩০ রানে অপরাজিত ছিলেন মোসাদ্দেক।

তবে এই হারে তেমন উচ্ছ্বাসের সুযোগ কোথায়? আরেকটু হলে হেরেই তো যাচ্ছিল দল। আফিফ হোসেন প্রতিরোধ না গড়লে শুরুতেই হয়তো হার দেখতে হতো দলের। আট নম্বরে নেমে ম্যাচের ভাগ্য গড়ে দেন। বল হাতে দাপটের পর ব্যাটিংয়েও ভাল করলেন মোসাদ্দেক হোসেন। তাদের দৃঢ়তায় ত্রিদেশীয় টি-টুয়েন্টি সিরিজে শুভ সূচনা করেছে বাংলাদেশ।

এর আগে বল হাতে নেমে অভিষেক বলেই উইকেট তুলে নেন তাইজুল। এদিনই বাংলাদেশের হয়ে প্রথম টি-টুয়েন্টি ম্যাচে দেখা গেল তাকে। ম্যাচে তিনটি করে চার ও ছক্কায় সাকিবের এক ওভারে দেন ৩০ রান। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে এটি তার সবচেয়ে খরুচে ওভার।
টি-টুয়েন্টির ক্যারিয়ারে প্রথম বলেই উইকেট শিকারের প্রথম কৃতিত্ব অস্ট্রেলিয়ার মাইকেল ক্যাসপ্রোভিচের। এই সাফল্য আরও পেয়েছেন ভারতের অজিত আগারকার, দক্ষিণ আফ্রিকার আলফানসো থমাস, অস্ট্রেলিয়ার শন টেইট, দক্ষিণ আফ্রিকার ক্লেনভেল্ট, ভারতের প্রজ্ঞান ওঝা, ইংল্যান্ডের জো ডেনলি, ভারতের বিরাট কোহলি, হংকংয়ের নাদিম আহমেদ ও পি, খাড়কা, পাপুয়া নিউ গিনির গাভেরা, ওমানের এ জে, লালচেটা, পাকিস্তানের আমির ইয়ামিন, নিউজিল্যান্ডের লকি ফার্গুসন ও শ্রীলঙ্কার লক্ষণ সান্দাকান। এই তালিকায় যোগ হলে তাইজুলের নাম।

সংক্ষিপ্ত স্কোর-

জিম্বাবুয়ে: ১৮ ওভারে ১৪৪/৫ (টেলর ৬, মাসাকাদজা ৩৪, আরভিন ১১, উইলিয়ামস ২, মারুমা ১, বার্ল ৫৭*, মুটুমবদজি ২৭*; সাকিব ৪-০-৪৯-০, তাইজুল ৩-০-২৬-১, সাইফ ৪-০-২৬-১, মুস্তাফিজ ৪-০-৩১-১, মোসাদ্দেক ৩-০-১০-১)

বাংলাদেশ: ১৭.৪ ওভারে ১৪৮/৭ (লিটন ১৯, সৌম্য ৪, সাকিব ১, মুশফিক ০, মাহমুদউল্লাহ ১৪, সাব্বির ১৫, মোসাদ্দেক ৩০*, আফিফ ৫২, সাইফ ৬*; উইলিয়ামস ৩-০-৩১-০, জার্ভিস ৪-০-৩১-২, চাতারা ৪-০-৩২-২, বার্ল ৩-০-২৭-১, মাদজিভা ৩.৪-২-২৫-২)
ফল: বাংলাদেশ ৩ উইকেটে জয়ী
ম্যাচসেরা: আফিফ হোসেন

প্রত্যুত্তর

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong>